west bengal election mamata banerjee live road show on wheel chair

Mamata Banerjee Road Show Live:

হাজরার সভামঞ্চে হুইলচেয়ারে বসেই তৃণমূল নেত্রী হুঙ্কার দিলেন-

  • জীবনে অনেক আঘাত পেয়েছি। অনেক লড়াই পেরিয়ে এসেছি। আপনারা সংযত থাকুন। আমার উপর ভরসা রাখুন।
  • ডাক্তার ১৫ দিন বিশ্রামের কথা বলেছিলেন। কিন্তু এখন বিশ্রাম নিলে চলবে না। শরীরের থেকে মনের যন্ত্রণা বড়। স্বৈরাচারীদের হাত থেকে গণতন্ত্রকে রক্ষা করতে হবে।
  • অশুভ শক্তিকে বিনাশ করতে হবে। শুভ শক্তির যেন উদয় হয়। ভাঙা পা নিয়েই আমি ঘুরে বেড়াব। হুইলচেয়ারে করেই সারা বাংলা ঘুরব।
  • আহত বাঘ আরও ভয়ঙ্কর। ভাঙা পায়ে খেলা হবে। বাংলা দখলের চেষ্টাকে নস্যাত্ করতে হবে।

গান্ধীমূর্তির পাদদেশ থেকে শুরু হল তৃণমূলের বিশাল মিছিল। হুইলচেয়ারে বসেই রাজপথে মিছিলের নেতৃত্বে মুখ্যমন্ত্রী।

হুইলচেয়ারে বসেই গান্ধীমূর্তিতে মাল্যদান করেন তৃণমূল নেত্রী।

গান্ধীমূর্তির পাদদেশে পৌঁছলেন মুখ্যমন্ত্রী। গাড়ি থেকে নেমে হুইলচেয়ারে করে পৌঁছলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

অভিষেক বলেন, “নেত্রী বলেন, আমি হুইলচেয়ারে যাব। আমার যত কষ্ট হোক, হবে। কিন্তু আমি যাব। জাতির জনকের পায়ে মালা দিয়ে আমি কর্মসূচি শুরু করব।”

গান্ধী মূর্তির পাদদেশের মঞ্চ থেকে অভিষেকের হুঁশিয়ারি, “ভাঙা পায়ে লড়াই হবে। যুদ্ধ হবে। আবার নবান্ন দখল হবে। কেউ যদি ভাবেন যে পা ভেঙে দিয়ে বেরিয়ে যাব, তাহলে ভুল করবেন।”

বাড়ি থেকে বেরলেন মুখ্যমন্ত্রী বন্দ্যোপাধ্য়ায়। আলিপুর, ভবানীভবন হয়ে  তিনি যাবেন গান্ধী মূর্তিতে।

মঞ্চে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্য়ায়, অরূপ বিশ্বাস, দেবাশিস কুমার, অনিন্দ্য কিশোর রাউত। 

মিছিলের উদ্দেশে বেরিয়ে গিয়েছেন অভিষেক বন্দ্য়োপাধ্য়ায়।

সকাল থেকেই কালীঘাটের বাড়ির সামনে কর্মী, সমর্থকদের ভিড়। বঙ্গজননী ব্রিগেডের মহিলা সদস্যরা ফুল-শঙ্খ হাতে অভ্যর্থনা জানাতে প্রস্তুত।

‘খেলা হবে, খেলা হবে’, স্লোগান দিতে দিতে আসছেন তৃণমূল কর্মী সমর্থকরা।

মঞ্চে মুখ্যমন্ত্রীর ওঠার জন্য আলাদা ব্যবস্থা করা হয়েছে।

রাজপথে মিছিল-সভা শেষে আজই দুর্গাপুর চলে যাবেন মমতা ব্যানার্জি। আগামিকাল থেকে শুরু হবে তাঁর জেলা সফর।

READ  Hombre perdió premio equivalente a 20.000 millones de pesos en una Lotería por no cobrarlo a tiempo | Sociedad

কালীঘাটের বাড়িতে এসে গিয়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও।

ইতিমধ্যেই মিছিলে যোগ দিতে তৃণমূলের কর্মী সমর্থকরা আসতে শুরু করেছেন। 

গান্ধী মূর্তির পাদদেশ থেকে হাজরা পর্যন্ত তৃণমূলের মিছিল। মিছিল শেষে হাজরায় বক্তৃতা দেবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়। 

নন্দীগ্রামের ঘটনার পর আজ প্রথমবার প্রকাশ্যে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্য়ায়। হুইলচেয়ারে বসেই ভোট ময়দানে আজ মমতা।

সভামঞ্চ থেকে মমতা

* সারা ভারতজুড়ে কৃষকদের প্রণাম, সালাম।
* আজ আমার বলার বেশি সময় নেই। দুর্গাপুর পুরুলিয়া যেতে হবে।
* ভোটের সময় প্রতিটা মিনিটের দাম অনেক। ইতিমধ্যেই অনেক দিন নষ্ট হয়েছে।
* শুধু এটুকুই বলব অনেক আঘাতের মধ্যে জীবন পেরিছি। আমি মাথা নোয়াইনি।
* যন্ত্রণা তো থাকবেই। শারীরিক যন্ত্রণার থেকে মানষিক যন্ত্রণা বড়। গণতন্ত্রের যন্ত্রণা বড়। আমার পা হাঁটলে হৃদয় হাঁটে, মাথা হাঁটে।
* সারা শরীরে আমার কালো কালো চিহ্নতে ভর্তি।
* আমার ৭ দিন পর চেকআপ।
* সৈরাচারিদের হাত থেকে গণতন্ত্র রক্ষার দায়িত্ব আমাদের।
* অশুভ শক্তি যেন বিনাশ হয়। বাংলাকে ঘিরে সমস্ত পরিকল্পনা যেন নস্যাৎ সহ।
* ভালো থাকুন, শান্ত থাকুন। আমি ভাঙা পায়েই সারা বাংলা ঘুরব। খেলা হবে।
* নিহত বাঘের থেকে আহত বাঘ ভয়ঙ্কর।
* আমাকে প্রাণে মারার চক্রান্ত হয়েছে। হাজরা আমায় ফিরিয়ে দিয়েছে। 
*  ১৫ দিন বিশ্রাম নেওয়ার কথা ছিল। আমি বেড রেস্ট নিলে মানুষের কাছে পৌঁছবে কে। 
*  এই কদিন মা-মাটি-মানুষ আমায় নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়েছে তাঁদের সকলে আমার কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি।

Lascia un commento

Il tuo indirizzo email non sarà pubblicato. I campi obbligatori sono contrassegnati *